স্বর্ণের আংটি ১৮শ’ বছর আগের

যেখানে দেখিবে ছাই উড়াইয়া দেখ তাই, পাইলে পাইতে পার অমূল্য রতন— কবিতার এই আপ্তবাক্যে বিশ্বাস করে বহু সময়ই সামান্যর ভিতরেও অসামান্যের সন্ধান করে চলে মানুষ। কখনও কখনও ঘটে যায় ‘ম্যাজিক’। ব্রিটেনের বাসিন্দা জেসন ম্যাসির জীবনেও ঘটেছে এমনই এক অদ্ভুত ঘটনা। শখ করে ফাঁকা মাঠে অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে তাঁর চক্ষু চড়ক গাছ! মিলেছে বিপুল গুপ্তধনের। গল্পকথার মতো শোনালেও ঘটনাটি একেবারে সত্যি।

সাউথ ওয়েস্ট হেরিটেজ ট্রাস্টের কর্মকর্তা সিওরস্টাইড হেওয়ার্ড বলেছেন, সমারসেটে আগেও নানান ধরনের প্রাচীন আংটি পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু সেগুলোর সঙ্গে এই আংটির বিস্তর ফারাক। ২৪ ক্যারেটের এই সোনার আংটির মূল্য কত হতে পারে, তা খতিয়ে দেখছেন মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি সন্ধান মিলেছে ৬০টি রোমান মুদ্রারও। যে জমি থেকে ওই আংটি পাওয়া গিয়েছে, সেই জমির মালিকেরও সমান শেয়ার থাকবে প্রাপ্ত সম্পত্তির। তবে জমির মালিকের সঙ্গে প্রাপ্ত অর্থ ভাগ করে নিলেও তা যে নেহাত কম হবে না তা বলাই যায়। তবে জেসনের জন্য কিছুটা হতাশার খবর হচ্ছে, ঐতিহাসিকভাবে অমূল্য সম্পদ হওয়ায় আংটিটি বাজেয়াপ্ত করেছে ব্রিটিশ মিউজিয়াম।

জেসন যেসব গুপ্তধন পেয়েছেন তার মধ্যে সবচে মূল্যবান হচ্ছে ১৮০০ বছর আগের একটি সোনার আংটি ও স্বর্ণমুদ্রা। একটি ফাঁকা মাঠে মেটাল ডিটেক্টরের সাহায্যেই তিনি ওই ধনসম্পত্তির সন্ধান পেয়েছেন।

ব্রিটেনের ডেইলি মেইল পত্রিকা জানায়, জেসন সেনাবাহিনীর একজন সাবেক কর্মী। বর্তমানে তিনি একজন শখের প্রত্নতাত্ত্বিক। ‘ডিটেক্টিং ফর ভেটেরানস’ নামের একটি গ্রুপের সদস্য জেসন সমারসেটের এক মাঠে শখের অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে আচমকাই খুঁজে পেয়েছেন এসব মহামূল্যবান জিনিসপত্র। তার পাওয়া আংটির সোনা ২৪ ক্যারেটের। আংটির উপরে রোমানদের জয়ের দেবী ভিক্টোরিয়ার ছবি খোদাই করা। অনুমান করা হচ্ছে, সেটি ২০০ থেকে ৩০০ খ্রিস্টাব্দের সময়কার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *