28 Aug, 2018

ভ্যালুটপ ব্র্যান্ডের নতুন গেমিং ক্যাসিং

বাজারে ভ্যালুটপ ব্র্যান্ডের নতুন গেমিং ক্যাসিং এনেছে কম্পিউটার সিটি টেকনোলজিস লি:। ক্যাসিংটির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে পাঁচটি ১২ সেন্টিমিটার কুলিং ফ্যান।
আর এই সুবিধার ফলে যেকোন ধরণের হাই ডেফিনিশন গেমস নিশ্চিন্তে খেলা যায়। অধিক তথ্য ধারণ করার জন্য এতে রয়েছে ৬টি হার্ডডিস্ক বে। ভিটি-টিআর৯০০ মডেলের কেসিংটির ভিতরটি বেশ প্রশস্ত, ফলে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বড় আকারের গ্রাফিক্স কার্ড স্থাপন করে পরবর্তী প্রজন্মের গেম খেলা যায়। দ্রুততার সাথে তথ্য আদান-প্রদানের জন্য এতে ইউএসবি ৩ পোর্টও রয়েছে।

25 Aug, 2018

রেসিপি: কোরিয়ান এগরোল

উপকরণ: ডিম- ৩টি, দুধ- দেড় টেবিল চামচ, পেঁয়াজকুচি, গাজরকুচি, ধনেপাতাকুচি, গোলমরিচগুঁড়া, মরিচগুঁড়া, কাঁচামরিচকুচি, লবণ, ভেজিটেবলঅয়েল

প্রণালি: একটি পাত্রে ডিমের সঙ্গে দুধ ও লবণ মিশিয়ে ফেটিয়ে নিন। গাজরকুচি, কাঁচামরিচকুচি, পেঁয়াজকুচি, ধনেপাতাকুচি, মরিচ গুঁড়া ও গোল মরিচ গুঁড়া মেশান ডিমের মিশ্রণে।
প্যানে তেল গরম করুন। ডিমের অর্ধেক মিশ্রণ প্যানে ছড়িয়ে দিন। শক্ত হয়ে আসলে এক পাশ থেকে রোল করে নিন। এভাবে সব মিশ্রণ দিয়ে বানিয়ে ফেলুন রোল। সসের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার এগরোল।

22 Aug, 2018

Eid-ul-Azha being celebrated

Muslims throughout the country are celebrating Eid-ul-Azha with the sacrifice of animals and the distribution of the meat among neighbours, family members, and the poor.

The day commemorates Hazrat Ibrahim’s devotion to Allah as illustrated by his readiness to give up his beloved son Hazrat Ismail.
Eid means spreading happiness beyond boundaries, beyond age or beyond race.

Millions of Muslims offered prayers in Eidgahs (open spaces) and mosques this (Wednesday) morning all over the country, seeking divine blessings, peace and progress for the country.

In Dhaka, the main congregation of Eid-ul-Azha was held at the National Eidgah at 8am where President Abdul Hamid offered his Eid prayers along with hundreds of people from all walks of life.There was a separate arrangement at the National Eidgah for women to offer their Eid prayers.

The congregation at National Eidgah. Thousands gathered at the venue to offer prayers on Eid morning.

Besides, five Eid congregations were held at the Baitul Mukarram National Mosque at 7am, 8am, 9am, 10am and 10:45am.

Eid congregations were held at 409 spots in the capital. Of the total, 230 Eid jamaats, including the main Eid congregation, were held under the Dhaka South City Corporation (DSCC) while the rest 179 under Dhaka North City Corporation (DNCC).

Sholakia Eidgah in Kishoreganj and Gor-e-Shaheed Baro Maidan in Dinajpurhosted the country’s largest Eid congregations.
People offering prayers before Baitul Mukarram, the national Eidgah. Photo: Prabir Das

Meanwhile, the main city streets and road islands have been decorated with the national flags and banners inscribed with ‘Eid Mubarak’ in Bangla and Arabic.

Special diets are being served in hospitals, jails, government orphanages, centres for persons with disabilities, shelter homes and vagrant and destitute welfare centres.

22 Aug, 2018

ঐশ্বরিয়া-অভিষেক ৮ বছর পর একসাথে

ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন ও অভিষেক বচ্চন। নিয়মিত কাজ করছেন বলিউডের এই তারকা দম্পতি। তবে একই পর্দায় তাদের দেখা নেই বহু বছর। সময়টা এখন ৮ বছরে এসে ঠেকেছে। আর বিরতির এই সময়টা ভাঙছে এবার। আবারো পর্দা ভাগাভাগি করবেন তারা। অনুরাগ কাশ্যপের পরবর্তী সিনেমায় এই তারকা দম্পতি জুটি হতে যাচ্ছেন। অনুরাগ কাশ্যপ পরিচালক হিসেবে পরিচিত হলেও এখানে প্রযোজনা করবেন তিনি। ছবিটি পরিচালনা করবেন করবেন সরভেশ মারওয়া।

ঐশ্বরিয়া ও অভিষেক বর্তমানে ছুটি কাটাতে রয়েছেন লন্ডনে। সেখানে মেয়ের আরাধ্যকে নিয়ে ঘুরছেন তারা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোচিতও হয়েছে তাদের ভ্রমণের ছবিগুলো। ফুটবল বিশ্বকাপ শেষ হলে মেয়েক নিয়ে কয়েকদিন ফরাসিদের আনন্দ উত্সবও দেখেছেন ঐশ্বরিয়া।

শিগগিরি এর ঘোষণা দেওয়া হবে। অন্যদিকে প্রায় ১৭ বছর পর অনিল কাপুরের জুটি বেঁধেছে ঐশ্বরিয়া। ‘ফ্যানি খান’ শিরোনামে সিনেমায় একসাথে দেখা যাবে তাদের। ছবিতে ঐশ্বরিয়ার নতুন লুক এরইমধ্যে বেশ আলোচিত। রাজকুমার রাওয়ের সাথে একটি গান রিলিজ পায় ছবিটি। প্রথমবারের সাথে রাজকুমার ও ঐশ্বরিয়াকে এক পর্দায় বেশ ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করেছেন দর্শক। জানা যায়, ৩ আগস্ট মুক্তি পাচ্ছে ‘ফ্যানি খান’।

18 Aug, 2018

বাজপেয়ী বাংলাদেশের মহান বন্ধু ছিলেন: শেখ হাসিনা

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তাকে বাংলাদেশের একজন মহান বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

আজ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে পাঠানো এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, ‘অটল বিহারী বাজপেয়ী আমাদের একজন মহান বন্ধু এবং বাংলাদেশে তিনি খুবই শ্রদ্ধাভাজন ছিলেন।’

তিনি বলেন, ‘ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সুশাসন এবং ভারতসহ এতদঞ্চলের সাধারণ মানুষের শান্তি ও সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য অটল বিহারী বাজপেয়ী চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

তিনি বলেন, ভারতের জনগণের কল্যাণে তার নিরলস প্রচেষ্টা আগামী প্রজন্মের নেতাদের অনুপ্রাণিত করবে। ভারতের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির অর্জনে কবি শ্রী বাজপেয়ী গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অমূল্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ সরকার তাকে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা প্রদান করে। আজ বাংলাদেশের সকলের জন্যও এটি একটি শোকের দিন।

সরকার ও বাংলাদেশের জনগণ এবং তার নিজের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী ভারতের সরকার ও জনগণসহ প্রয়াতের পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

বিজেপি’র প্রবীণ রাজনীতিক অটল বিহারী বাজপেয়ী বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লীর অল-ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সাইন্সে (এআইআইএমএস) মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর। ভারতের দশম প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ী কিডনি জটিলতায় ভুগছিলেন এবং তিনি গত ১১ জুন এআইআইএমএস-এ ভর্তি হন।

17 Aug, 2018

ষাটেও সাবলীল ম্যাডোনা

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত পপ সঙ্গীত শিল্পী ম্যাডোনা ৬০ বছরে পা রেখেছেন গতকাল ১৬ আগস্ট। কিন্তু নিজের ভূবনে এখনো অবিশ্বাস্য রকম সাবলীল তিনি। বরাবারের মতোই আবেদনময়ী। ম্যাডোনা নিজেও মনে করেন তার বয়স যেন ‘পঁচিশে থমকে আছে’। বয়স বাড়লে নারী শিল্পীরা আকর্ষণ হারায় এমন ধারণাকে ভুল প্রমাণ করেছেন ম্যাডোনা। আবেদনের দিক দিয়ে এখনও তিনি টিনেজারদের কাছে ঈর্ষার পাত্র।

এই পপসম্রাজ্ঞী ৬০ বছরের মধ্যে ৩৫ বছরই কাটিয়েছেন সংগীত জগতে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ধনী নারী সংগীতশিল্পী। তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয় ১৯৮৩ সালে। এরপর এখন পর্যন্ত তার বিভিন্ন অ্যালবাম বিক্রি হয়েছে ৩০ কোটির বেশি। এর মাধ্যমে ম্যাডোনা গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লিখিয়েছেন। তিনিই এখন পর্যন্ত সঙ্গীত ইতিহাসে সবচে বেশি বিক্রি হওয়া অ্যালবামের শিল্পী।

ম্যাডোনা কাউকে অনুসরণ কিংবা অনুকরণ করতেন না। সঙ্গীতে কিংবা মডেলিংয়ে একেবারে নিজের স্টাইল চালু করেছিলেন ম্যাডোনা। তিনি যা করতেন তাই-ই সুপারহিট হয়ে যেতে। দুনিয়া জুড়ে অসংখ্য ভক্ত তৈরী করেছেন। চেহারার তেজ রয়েছে আগের মতোই। পঞ্চাশোর্ধ ম্যাডোনার মিউজিক ভিডিওগুলো দেখতে এখনো ইউটিউবে হুমড়ি খেয়ে পড়ে কোটি কোটি অনুরাগী। এখনও যতটুকু তিনি দর্শক-ভক্তদের সামনে হাজির হন ততটুকু উপস্থিতি নজর কাড়ে সবার।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান শহরে ১৯৫৮ সালের ১৬ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার পুরো নাম ম্যাডোনা লুইজ চিকোনে। গান ছাড়া ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবেও সুখ্যাতি রয়েছে তার। পাশাপাশি তিনি একজন দক্ষ অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী, ব্যবসায়ী ও চিত্র পরিচালক। স্নাতক পাসের পর ইউনিভার্সিটি অব মিশিগান থেকে নৃত্য কলায় বৃত্তি লাভ করেন এই তারকা। আশির দশকে বিশ্বব্যাপী সঙ্গীত জগতে যখন পুরুষদের একক আধিপত্য ছিল তখন ম্যাডোনার পারফর্মান্স নারীদের নতুনভাবে উত্সাহিত করেছিল সঙ্গীত জগতে ক্যারিয়ার গড়তে। তার অসংখ্য জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে পাপা ডোন্ট প্রিচ, লাইক আ প্রেয়ার, ভেগ, সিক্রেট, রে অব লাইট, লাইক আ ভার্জিন, হলি ডে, আমেরিকান লাইফ ইত্যাদি। তার অভিনীত সিনেমার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে , ‘অ্যা সারটেইন সেক্রিফাইস’, ‘এভিটা’, ‘দ্য নেক্সট বেস্ট থিং’ ইত্যাদি। খ্যাতনামা ম্যাডোনার তত্কালীন সাদাকালো ছবিগুলো এখনো হাজার হাজার ডলারে বিক্রি হয়। সঙ্গীত জগতের বিশ্লেষকরা বলেছেন, তারুণ্যকে থেকে থেকে ঝাঁকুনি দিয়েছেন এই আবেদনময়ী শিল্পী। জীবন তাকে যা দিয়েছে, তিনি যেন জীবনকে দিয়েছেন তারও চেয়ে বেশি। তার অ্যালবামের প্রায় সব কটি হিট। এটি কয়জনের ভাগ্যে জোটে। তার সিনেমাগুলোও হিট। তবে খোলামেলা পোশাকের কারণে বিস্তর সমালোচনাও হয়েছে তাকে নিয়ে, যদিও সেগুলোতে তিনি পাত্তা দেননি কখনো। -বিবিসি, ডেইলি মেইল।

16 Aug, 2018

ফারুক পূর্ণিমার রাতের আড্ডায়

এক সময়ের বাংলা চলচ্চিত্রে সবার উপরে অবস্থান ছিল নায়িকা পূর্ণিমার। অভিনয়ে অনিয়মিত হয়ে সম্প্রতি উপস্থাপনায় নাম লিখিয়েছেন তিনি। বর্তমানে বেসরকারি আরটিভিতে ‘এবং পূর্ণিমা’ নামের একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন এই নায়িকা।

সম্প্রতি রাজধানীর তেজগাঁওস্থ বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া স্টুডিওতে পর্বটির রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করছেন সোহেল রানা বিদ্যুত।

আগামী শনিবার রাত ১০টায় হাসি হাসি মুখ নিয়ে আরটিভির পর্দায় হাজির হবেন পূর্ণিমা। এই পর্বে সেখানে পূর্ণিমার অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চিত্রনায়ক ফারুক। তিনি আড্ডা দেবেন নায়িকা পূর্ণিমার সঙ্গে। তাদের জীবনের পছন্দ-অপছন্দ, ভালো লাগা, মন্দ লাগাসহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন।

12 Aug, 2018

আনারস নারিকেলে ইলিশ

উপকরণ :ইলিশ মাছের টুকরা ৪টি, আনারসের ব্লেন্ড করা ১ কাপ, নারিকেলের দুধ ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা ১ চা চামচ, আদা বাটা ১/২ চা চামচ, জিরা বাটা ১/২ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, চিনি সামান্য, লবণ পরিমাণমতো, তেল ২/৩ চা চামচ, কাঁচামরিচ ৩/৪টি, হলুদ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ।

প্রণালি :প্যানে তেল দিয়ে সব মসলা দিয়ে কসিয়ে নারিকেলের দুধ ও আনারস দিয়ে দিন। ভালো করে ফুটে উঠলে মাছ দিয়ে ঢেকে রাখুন কয়েক মিনিট। কয়েক মিনিট পর মাছ উল্টে দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। এরপর কাঁচামরিচ দিন। তেল উপরে উঠে এলে নামিয়ে নিন। পরিবেশন করুন পোলাউ কিংবা সাদা ভাতের সঙ্গে।

11 Aug, 2018

স্বর্ণের আংটি ১৮শ’ বছর আগের

যেখানে দেখিবে ছাই উড়াইয়া দেখ তাই, পাইলে পাইতে পার অমূল্য রতন— কবিতার এই আপ্তবাক্যে বিশ্বাস করে বহু সময়ই সামান্যর ভিতরেও অসামান্যের সন্ধান করে চলে মানুষ। কখনও কখনও ঘটে যায় ‘ম্যাজিক’। ব্রিটেনের বাসিন্দা জেসন ম্যাসির জীবনেও ঘটেছে এমনই এক অদ্ভুত ঘটনা। শখ করে ফাঁকা মাঠে অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে তাঁর চক্ষু চড়ক গাছ! মিলেছে বিপুল গুপ্তধনের। গল্পকথার মতো শোনালেও ঘটনাটি একেবারে সত্যি।

সাউথ ওয়েস্ট হেরিটেজ ট্রাস্টের কর্মকর্তা সিওরস্টাইড হেওয়ার্ড বলেছেন, সমারসেটে আগেও নানান ধরনের প্রাচীন আংটি পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু সেগুলোর সঙ্গে এই আংটির বিস্তর ফারাক। ২৪ ক্যারেটের এই সোনার আংটির মূল্য কত হতে পারে, তা খতিয়ে দেখছেন মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি সন্ধান মিলেছে ৬০টি রোমান মুদ্রারও। যে জমি থেকে ওই আংটি পাওয়া গিয়েছে, সেই জমির মালিকেরও সমান শেয়ার থাকবে প্রাপ্ত সম্পত্তির। তবে জমির মালিকের সঙ্গে প্রাপ্ত অর্থ ভাগ করে নিলেও তা যে নেহাত কম হবে না তা বলাই যায়। তবে জেসনের জন্য কিছুটা হতাশার খবর হচ্ছে, ঐতিহাসিকভাবে অমূল্য সম্পদ হওয়ায় আংটিটি বাজেয়াপ্ত করেছে ব্রিটিশ মিউজিয়াম।

জেসন যেসব গুপ্তধন পেয়েছেন তার মধ্যে সবচে মূল্যবান হচ্ছে ১৮০০ বছর আগের একটি সোনার আংটি ও স্বর্ণমুদ্রা। একটি ফাঁকা মাঠে মেটাল ডিটেক্টরের সাহায্যেই তিনি ওই ধনসম্পত্তির সন্ধান পেয়েছেন।

ব্রিটেনের ডেইলি মেইল পত্রিকা জানায়, জেসন সেনাবাহিনীর একজন সাবেক কর্মী। বর্তমানে তিনি একজন শখের প্রত্নতাত্ত্বিক। ‘ডিটেক্টিং ফর ভেটেরানস’ নামের একটি গ্রুপের সদস্য জেসন সমারসেটের এক মাঠে শখের অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে আচমকাই খুঁজে পেয়েছেন এসব মহামূল্যবান জিনিসপত্র। তার পাওয়া আংটির সোনা ২৪ ক্যারেটের। আংটির উপরে রোমানদের জয়ের দেবী ভিক্টোরিয়ার ছবি খোদাই করা। অনুমান করা হচ্ছে, সেটি ২০০ থেকে ৩০০ খ্রিস্টাব্দের সময়কার।

9 Aug, 2018

সরকার ঐতিহাসিক রোজ গার্ডেন কিনে নিচ্ছে

ঢাকার টিকাটুলিতে ব্যক্তি মালিকানাধীন পুরাকীর্তি রোজ গার্ডেন বাড়িটি মালিকের কাছ থেকে কিনে নিচ্ছে সরকার। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে এর জন্য সরকারের ব্যয় হবে ৩৩১ কোটি ৭০ লাখ টাকা। পুরান ঢাকার টিকাটুলিস্থ কে এম দাস লেনের ঐতিহ্যবাহী ভবন এই রোজ গার্ডেন। তৎকালীন নব্য জমিদার হৃষীকেশ দাস ১৯৩০ সালের দিকে গড়ে তোলেন এ গার্ডেন।

অদ্বিতীয় গোলাপ বাগানসমৃদ্ধ বাড়ি হওয়ার করণে এর নাম হয় রোজ গার্ডেন। হৃষীকেশ এ বাগানের জন্য চীন, ভারত, জাপান ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে মাটিসহ গোলাপের চারা এনে লাগিয়েছিলেন বলে জানা যায়।গতকাল বুধবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে সচিবালয়ে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এই প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন অনুসারে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে বর্তমান মালিকদের কাছ থেকে রোজ গার্ডেন কিনবে সরকার।

জানা যায়, এই ভবনেই গড়ে ওঠে দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন এই রোজ গার্ডেনেই গঠিত হয়েছিলো পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ যা ১৯৫৫ সালে নতুন নাম হয় পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ। রোজ গার্ডেন বর্তমানে নাটক ও টেলিফিল্ম শুটিং স্পট হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে।

পরবর্তীতে তিনি ঋণের দায়ে জৌলুশপূর্ণ বাগানবাড়িটি ১৯৩৬ সালে খান বাহাদুর মৌলভী কাজী আবদুর রশীদের কাছে বিক্রি করে দেন।সত্তর সালের দিকে রোজ গার্ডেন লিজ দেওয়া হয় বেঙ্গল স্টুডিওকে। ১৯৮৯ সালে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ রোজ গার্ডেনকে সংরক্ষিত ভবন বলে ঘোষণা করে। এর পর ১৯৯৩ সালে রোজ গার্ডেনের অধিকার ফিরে পান কাজী আবদুর রশিদের মেজো ছেলে কাজী আবদুর রকীব। ১৯৯৫ সালে তার মৃত্যুর পর তার স্ত্রী লায়লা রকীব ওই সম্পত্তির মালিক হন।

মৌলভী কাজী আবদুর রশীদের কাছ থেকে ১৯৬৬ সালে রোজ গার্ডেনের মালিকানা পান তার বড় ভাই কাজী হুমায়ুন বশীর। এ কারণে সে সময় ভবনটি হুমায়ুন সাহেবের বাড়ি হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠে।