ষাটেও সাবলীল ম্যাডোনা

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত পপ সঙ্গীত শিল্পী ম্যাডোনা ৬০ বছরে পা রেখেছেন গতকাল ১৬ আগস্ট। কিন্তু নিজের ভূবনে এখনো অবিশ্বাস্য রকম সাবলীল তিনি। বরাবারের মতোই আবেদনময়ী। ম্যাডোনা নিজেও মনে করেন তার বয়স যেন ‘পঁচিশে থমকে আছে’। বয়স বাড়লে নারী শিল্পীরা আকর্ষণ হারায় এমন ধারণাকে ভুল প্রমাণ করেছেন ম্যাডোনা। আবেদনের দিক দিয়ে এখনও তিনি টিনেজারদের কাছে ঈর্ষার পাত্র।

এই পপসম্রাজ্ঞী ৬০ বছরের মধ্যে ৩৫ বছরই কাটিয়েছেন সংগীত জগতে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ধনী নারী সংগীতশিল্পী। তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয় ১৯৮৩ সালে। এরপর এখন পর্যন্ত তার বিভিন্ন অ্যালবাম বিক্রি হয়েছে ৩০ কোটির বেশি। এর মাধ্যমে ম্যাডোনা গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লিখিয়েছেন। তিনিই এখন পর্যন্ত সঙ্গীত ইতিহাসে সবচে বেশি বিক্রি হওয়া অ্যালবামের শিল্পী।

ম্যাডোনা কাউকে অনুসরণ কিংবা অনুকরণ করতেন না। সঙ্গীতে কিংবা মডেলিংয়ে একেবারে নিজের স্টাইল চালু করেছিলেন ম্যাডোনা। তিনি যা করতেন তাই-ই সুপারহিট হয়ে যেতে। দুনিয়া জুড়ে অসংখ্য ভক্ত তৈরী করেছেন। চেহারার তেজ রয়েছে আগের মতোই। পঞ্চাশোর্ধ ম্যাডোনার মিউজিক ভিডিওগুলো দেখতে এখনো ইউটিউবে হুমড়ি খেয়ে পড়ে কোটি কোটি অনুরাগী। এখনও যতটুকু তিনি দর্শক-ভক্তদের সামনে হাজির হন ততটুকু উপস্থিতি নজর কাড়ে সবার।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান শহরে ১৯৫৮ সালের ১৬ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার পুরো নাম ম্যাডোনা লুইজ চিকোনে। গান ছাড়া ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবেও সুখ্যাতি রয়েছে তার। পাশাপাশি তিনি একজন দক্ষ অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী, ব্যবসায়ী ও চিত্র পরিচালক। স্নাতক পাসের পর ইউনিভার্সিটি অব মিশিগান থেকে নৃত্য কলায় বৃত্তি লাভ করেন এই তারকা। আশির দশকে বিশ্বব্যাপী সঙ্গীত জগতে যখন পুরুষদের একক আধিপত্য ছিল তখন ম্যাডোনার পারফর্মান্স নারীদের নতুনভাবে উত্সাহিত করেছিল সঙ্গীত জগতে ক্যারিয়ার গড়তে। তার অসংখ্য জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে পাপা ডোন্ট প্রিচ, লাইক আ প্রেয়ার, ভেগ, সিক্রেট, রে অব লাইট, লাইক আ ভার্জিন, হলি ডে, আমেরিকান লাইফ ইত্যাদি। তার অভিনীত সিনেমার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে , ‘অ্যা সারটেইন সেক্রিফাইস’, ‘এভিটা’, ‘দ্য নেক্সট বেস্ট থিং’ ইত্যাদি। খ্যাতনামা ম্যাডোনার তত্কালীন সাদাকালো ছবিগুলো এখনো হাজার হাজার ডলারে বিক্রি হয়। সঙ্গীত জগতের বিশ্লেষকরা বলেছেন, তারুণ্যকে থেকে থেকে ঝাঁকুনি দিয়েছেন এই আবেদনময়ী শিল্পী। জীবন তাকে যা দিয়েছে, তিনি যেন জীবনকে দিয়েছেন তারও চেয়ে বেশি। তার অ্যালবামের প্রায় সব কটি হিট। এটি কয়জনের ভাগ্যে জোটে। তার সিনেমাগুলোও হিট। তবে খোলামেলা পোশাকের কারণে বিস্তর সমালোচনাও হয়েছে তাকে নিয়ে, যদিও সেগুলোতে তিনি পাত্তা দেননি কখনো। -বিবিসি, ডেইলি মেইল।